কিভাবে বুঝবো আমি প্রেগনেন্ট – kivabe bujbo ami pregnant

প্রতিনিয়ত অনলাইনে অনেকেই এই বিষয়ে সার্চ করে জানতে চান যে, কিভাবে বুঝবো আমি প্রেগনেন্ট or Kivabe Bujbo ami pregnant?

প্রিয় দর্শক! আপনার মনেও যদি এরকম প্রশ্ন এসে থাকে, তাহলে এই পোস্টটি আপনার জন্য। এই পোষ্ট পড়লে আপনি কী কী জানতে পারবেন তা হলোঃ কিভাবে প্রেগনেন্সি টেস্ট করববেন, কিভাবে বুঝবো আমি প্রেগনেন্ট, কখন একটি মেয়ে প্রেগনেন্ট হয়? প্রেগনেন্ট হলে শরীরে কী কী আলামত পাওয়া যায়? ইত্যাদী। তাহলে চলুন, বিষয়গুলো সম্পর্কে ক্লিয়ার ধারণা নেওয়া যাক।

প্রেগনেন্ট হওয়ার লক্ষণগুলি কী কী?

যখন একটি মেয়ে গর্ভবতী হয়, তখণ তার শরীরে এবং মনে বেশ কিছু পরিবর্তণ লক্ষ করা যায়। আমি প্রথমে সেসব পরিবর্তনের ব্যাপারে আলোচনা করবো।

যদি আপনি মাসিকের হিসাব ভালোভাবে না রাখেন অথবা যদি আপনার মাসিক চক্র মেনে না চলে, তবে হয়তো আপনি বুঝতে পারবেন না যে, কখন মাসিক হওয়া উচিত, এমন সময় আপনি সময়মতো মাসিক না হবার কারণ নিয়ে চিন্তিত হতে পারেন। তখন যদি আপনি নিচে উল্লেখিত কোন একটি উপসর্গ নিজের মাঝে দেখতে পান, তাহলে খুব সম্ভবত আপনি গর্ভবতী। নিশ্চিত হতে নিম্নে দেওয়া উপসর্গগুলো মিলিয়ে নিন এবং বাসায় বসেই টেস্ট করে ফেলুন।

মাসিক মিস হওয়া

আপনার মাসিক চক্র যদি ঠিক থাকে, অথবা আপনার মাসিক যদি নিয়মিত হয়। এবং হঠাৎ করে যদি মাসিক মিস হয়, তাহলে হতে পারে আপনি প্রেগনেন্ট। তবে মনে রাখবেন, মাসিক মিস হওয়া মানেই কিন্তু আপনি প্রেগনেন্ট বিষয়টি এরকম নয়।

বমি বমি ভাব

সাধারণভাবে গর্ভধাণের ১ মাসের আগে বমি-বমি ভাব দেখা দেয় না। তবে এর ব্যতিক্রমও আছে, কিছু কিছু মেয়েদের বেলায় গর্ভধারণের ২ সপ্তাহের মাঝেই বমিভাব দেখা দেয়। সাধারণত সকাল বেলা এরকম বমিভাব হয়, তবে অনেকের সকাল ছাড়া অন্য সময়েও হতে পারে।

প্রায় অর্ধেকের মতো মহিলা তাদের দ্বিতীয় ট্রিমেস্টারের শুরুতে বমি-বমি ভাব থেকে মুক্তি পায়, তবে কিছু ক্ষেত্রে বমি-বমি ভাব দীর্ঘ সময় ধরে হতে পারে। এই বমিভাব একেবারে নিরাময় হয় না। খুব কম সংখ্যক ভাগ্যবতী মায়েরা এ থেকে মুক্তি পেয়ে থাকেন।

খাবারে অনীহা

গর্ভবস্থার শুরুর দিকে খাবারে প্রতি অনীহা বোধ হওয়াটা বেশ স্বাভাবিক। যদি কোন খাবারের গন্ধ আপনার মাঝে বমি ভাব নিয়ে আসে, তাহলে খেয়াল করুন এমনটা ক্রমাগত হচ্ছে কিনা আর ধীরে ধীরে ব্যাপারটি বাড়ছে কিনা। এসময় বমিভাব কিংবা খাদ্যে অনীহার কোন স্পষ্ট ব্যাখ্যা নেই।

ভয় পাবেন না, খুব সম্ভবত আপনার শরীরে ক্রমবর্ধমান ইস্ট্রোজেন হরমোনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া এটা। এসময় আপনার খুব পছন্দের কোন খাবার খেতে বিস্বাদ লাগলেও আশ্চর্য হবেন না। বরং এরকমই হয়ে থাকে!

এছাড়াও গর্ভবতী হওয়া বেশ কিছু প্রধান লক্ষগুলো হচ্ছে:

  • মন মেজাজের উঠানামা করা।
  • ঘন ঘন প্রস্রাবের বেগ আসা।
  • স্তন কোমল ও স্ফীত হওয়া।
  • স্পটিং ও সাদা স্রাব হওয়া।
  • শারীরিক তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়া।
  • অবসন্নবোধ হওয়া।

আমি কি গর্ভবতী? Ami Ki Pregnant?

যদি গর্ভধারণের সবগুলো উপস্বর্গ বা একাধিক লক্ষণ আপনার মাঝে দেখা দেয়, তাহলে খুব সাধারণত ধরে নেওয়া যায় যে, আপনি প্রেগনেন্ট। তবে শিউর হবার জন্য আপনি ঘরে বসেই প্রেগনেন্সি টেস্ট করে নিতে পারেন।

কিভাবে প্রেগনেন্সি টেষ্ট করবো – Kivabe Pregnancy test korbo

বাসায় বসে টেস্ট

ফার্মেসি থেকে প্রেগনেন্সি টেস্ট কিট কিনে আনুন, প্রায় সব ফার্মেসিতেই পাওয়া যায়, মাসিক মিস হবার অন্ততঃ ১ সপ্তাহ পর টেস্ট করুন। তবে একটা বিষয় মনে রাখবেন যে, সব সময় কিট সঠিক রেজাল্ট দেয়না।

যদি আপনার মাঝে প্রেগনেন্সির সবগুলো লক্ষণ দেখা দেয়, এবং কিট টেস্টে যদি নেগেটিভ আসে, তাহলে কয়েকদিন পর আবার কিট টেস্ট করতে পারেন।

ব্লাড টেস্ট

রক্ত পরিক্ষা বা ব্লাড টেস্ট বেশ নির্ভরযোগ্য একটি টেস্ট, এই টেস্টের মাধ্যমে মোটামোটি নির্ভরযোগ্যভাবেই জানা যাবে যে, আপনি প্রেগনেন্ট কিনা। বিড়ম্বনা কাটাতে ব্লাড টেস্টটি করিয়ে নিশ্চিত হতে পারেন। আরো বাংলা স্বাস্থ্য টিপস পড়ুন।

রিলেটেড কিওয়ার্ডঃ 1st week pregnancy symptoms in bengali, pregnant hobar tips bangla, কতদিন পর প্রেগন্যান্সি টেস্ট করতে হয়, pregnancy test at home in bengali, pregnancy in bengali language, pregnancy nosto korbo kivabe, kivabe pregnancy test korbo, how to stop pregnancy in bengali,

About Lana Rose